AdmissionBangla Classes

বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি ইচ্ছুক শিক্ষার্থীদের জন্য বিশেষ অনুশীলন বাংলা – ১ম পর্ব

শব্দের অপপ্রয়োগের কারণ

[শব্দপ্রয়োগের নিয়ম জানা থাকলে অপপ্রয়োগের হাত থেকে রেহাই পাওয়া যায়। নিম্নে শব্দের অপপ্রয়োগের কিছু উদাহরণ কারণসহ তুলে ধরা হল।]

অজ্ঞানতা- অজ্ঞতা অর্থে প্রয়োগ অশুদ্ধ। অজ্ঞানতা শব্দের প্রকৃত অর্থ জ্ঞানশূন্যতা।

অশ্রুজল- চোখের জল অর্থে ব্যবহার অসিদ্ধ। অশ্রু অর্থই চোখের জল।

আঙ্গিক- অর্থ অঙ্গ-সম্বন্ধীয়। কলাকৌশল অর্থে প্রয়োগ ভুল।

আয়াত্তাধীন-আয়ত্ত শব্দের অর্থই অধীন। আয়ত্তের পর অধীন ব্যবহার বাহুল্য।

অপোগন্ড- প্রকৃত অর্থ নাবালক বা অপ্রাপ্তবয়স্ক বালক। অপদার্থ, অকর্মণ্য অর্থে প্রয়োগ অশুদ্ধ।

অধীনস্ত-শুদ্ধপ্রয়োগ অধীন।

আকন্ঠ পর্যন্ত-আকন্ঠ শব্দই কন্ঠ পর্যন্ত বোঝায়।পর্যন্ত এখানে বাহুল্য।

আন্তর্জাতিক-জাতির অন্তর্গত বা জাতির আভ্যন্তরিক বিষয়-সম্পর্কিত।বিভিন্ন জাতি-সংক্রান্ত বা সার্বজাতিক অর্থে প্রয়োগ অশুদ্ধ হলেও ব্যাপকভাবে প্রচলিত।

আশ্চর্য-মূল অর্থ বিস্ময়কর। বিস্মিত অথ্যে ব্যবহার প্রচলিত হলেও ভুল,শুদ্ধরূপ আশ্চর্যান্বিত।

ইদানীংকালে-ইদানীং অর্থ বর্তমান কাল,এর সঙ্গে কাল যোগ করা বাহুল্য।

কর্মব্যপদেশে-কাজের ছুতায়।কর্মসূত্রে অর্থে প্রয়োগ ভুল।

কর্তৃপক্ষগণ-কর্তৃপক্ষ শব্দটি বহুবচনবাচক।অর্থ পরিচালকগণ,শাসকগণ।অতএব ‘গণ’প্রয়োগ বাহুল্য ও অশুদ্ধ।

খাঁটি গরুর দুধ-কথাটি অর্থহীন।শুদ্ধ রূপ গরুর খাঁটি দুধ।

কার্যকরী-কার্যকর অর্থই উপযোগী বা উপযোগী বা ফলদায়ক। ‘ঈ’-কার বাহুল্য।

কৃচ্ছতা-কৃচ্ছ শব্দের অর্থ শারীরিক ক্লেশ,কষ্টসাধ্য ব্রত।– ‘তা’ প্রত্যয় যোগ অশুদ্ধ।

জন্মবার্ষিকী-জন্মবার্ষিক শব্দই যথেষ্ট।অকারণ স্ত্রী-প্রত্যয়-যোগ বহুল প্রচলিত হলেও অশুদ্ধ।

জাতীয়করণ/রাষ্ট্রীয়করণ-ইংরেজী Nationalization -এর বাংলা অনুবাদ।প্রতিশব্দ। জাতীয়করণ বা রাষ্ট্রীয়করণ বলতে জাতি বা রাষ্ট্রের অন্তর্ভুক্তিকরণ বোঝায়।রাষ্ট্রীয় বা সরকারী তত্ত্বাবধানে আনা বোঝায় না। কাজেই রাষ্ট্রায়ত্ত করা অথবা সরকারী করা ইত্যাদি ব্যবহার বাঞ্ছনীয়।

তৎকালীন সময়-তৎকালীন অর্থ সেই সময়। ‘তৎকালীন সময়’ প্রয়োগ অশুদ্ধ।

ধুমপান নিষেধ-ইংরেজী smoking is prohibited –এর বাংলা অনুবাদ হিসেবে অশুদ্ধ। শুদ্ধ রূপ: ধুমপান করা নিষেধ অথবা ধুমপান নিষিদ্ধ।

পদক্ষেপ-অর্থ পদার্পণ বা পা ফেলা। ব্যবস্থা গ্রহণ অর্থে পদক্ষেপ শব্দটির প্রয়োগ প্রচলিত হলেও অশুদ্ধ।

পূর্বাহ্নে-পূর্বে বা আগে অর্থে ব্যবহৃত শব্দটি ভুল।পূবাহ্নে অর্থ দিনের প্রথমভাগ বা সকালবেলা।

প্রমাণ্য-অর্থ প্রমাণিকতা বা বিশ্বস্ততা। এই বিশেষ্য শব্দটি প্রমাণসিদ্ধ,বিশ্বাসযোগ্য,প্রমাণিত বা প্রামাণিক(বিণ)অর্থে প্রয়োগ ভুল।

প্রেক্ষিত-মূল অর্থ যা প্রেক্ষণ বা দর্শন করা হয়েছে।পরিপ্রেক্ষিত (পটভূমি বা পারিপার্শ্বিক)অর্থে প্রেক্ষিত শব্দটির ব্যবহার অসিদ্ধ।

ফরাসীয়-ফরাসী শব্দের অর্থই ফরাসীদেশীয়। সুতরাং ‘ঈয়’প্রত্যয় যোগে ফরাসীয় সাহিত্য প্রয়োগ অসিদ্ধ। অনুরূপ ভুল-রুশীয়,মার্কিনী ইত্যাদি।

ফলশ্রুতি-আভিধানিক অর্থ পূণ্যকর্ম করলে যে ফল হয় তার বিবরণ বা তা শোনা। ফল বা ফলাফল অর্থে প্রয়োগ অশুদ্ধ।

বমালসুদ্ধ-বমাল শব্দের অর্থই মালসমেত,সেক্ষেত্রে শেষের ‘সূদ্ধ’ শব্দটি বাহুল্য।

ব্যক্তিত্ব-ব্যক্তি শব্দটি কর্তৃবাচক ও ব্যক্তিত্ব শব্দটি কর্মবাচক পদ। উভয়ই বিশেষ্য হলেও ‘ব্যক্তি’ অর্থে ব্যক্তিত্ব (ব্যক্তির স্বাভাবিক বৈশিষ্ট্য বা personality )শব্দটির প্রয়োগ অসিদ্ধ।

বৈদেহী/বিদেহী-বিদেহ শব্দের অর্থ দেহশূণ্য বা অশরীরী।বিদেহ বিশেষণ,কিন্তু  ‘ঈ’-প্রত্যয় যোগে পুনরায় বিশেষণ করা হয় –‘বিদেহী’। প্রচলিত হলেও ‘বিদেহী’ শব্দটি অশুদ্ধ।এই অর্থে ‘বৈদেহী’ শব্দটির প্রয়োগও ভুল।

ভাষাভাষী-ভাষা ব্যবহারকারী অর্থে ভাষীই যথার্থ ও যথেষ্ট। ভাষাভাষী প্রয়োগ বাহুল্য।

শায়িত-শায়িত শব্দের অর্থ ‘শয়ন করানো হয়েছে এমন’। যিনি নিজে শুয়ে আছেন তাঁকে ‘শয়ান’ বলা হয়। শুয়ে আছেন অর্থে শায়িত শব্দের প্রয়োগ প্রচলিত হলেও অশুদ্ধ।

স্বপরিবার/সপরিবার/সপরিবারে- ‘আপনি স্বপরিবার আমন্ত্রিত’-নিমন্ত্রণ-পত্রে এই ভুল বাক্যটি প্রায়ই লক্ষ্য করা যায়। ‘স্বপরিবার’ অর্থ নিজ পরিবার।সপরিবার শব্দটি বিশেষণ,অর্থ-‘পরিবারসহ’। ‘আপনি সপরিবার আমন্ত্রিত’বাক্যটি তাই শুদ্ধ। সংস্কৃতে ‘সপরিবার’ ক্রিয়া-বিশেষণরূপে ব্যবহৃত হয়,কিন্তু বাংলায় ক্রিয়া-বিশেষণরূপে ‘সপরিবারে’ ব্যাকরণসম্মত না হলেও প্রচলিত।যেমন- ‘আপনি সপরিবারে আসিবেন’। অনুরূপ শব্দ-সবান্ধব(বিণ)-সবান্ধবে (ক্রি-বিণ)। একটি পরিবার অর্থে পরিবারবর্গ প্রয়োগ অশুদ্ধ।

সমৃদ্ধশালী/সম্পদশালী- সমৃদ্ধ (বিণ)শব্দের অর্থ সম্পদশালী বা প্রাচুর্যযুক্ত। – ‘শালী’ যোগ করে বিশেষণ পদ পুনরায় বিশেষণ করা অর্থহীন ও অশুদ্ধ। সম্পদ(বি.)বা সমৃদ্ধি (বি.) –র সঙ্গে ‘শালী’ যোগ করে বিশেষণ করা যায়। সম্পদশালী-র সঙ্গে – ‘ইনি’ প্রত্যয়-যোগও (যেমন-সম্পদশালিনী) ব্যকরণসম্মত নয়। শস্যশালীনীও এ- জাতীয় ভুল (শুদ্ধরূপ- শস্যশালী)।

সূত্র: বাংলা ভাষার প্রয়োগ ও অপপ্রয়োগ-বাংলা একাডেমী,ঢাকা